শিরোনাম

প্রকাশঃ ২০২৩-০১-১৭ ১১:২৬:৫০,   আপডেটঃ ২০২৩-০২-০৯ ০১:২৭:১২


চোর বলায় রুমমেটকে কুপিয়ে হত্যার পর মাটি চাপা

চোর বলায় রুমমেটকে কুপিয়ে হত্যার পর মাটি চাপা

নিজস্ব প্রতিবেদক 

মঞ্জুরুল একটি ফার্মে ও নাহিদ লেবারের কাজ করতো। বুড়িচং উপজেলার দুর্গাপুরের নোয়াপাড়া এলাকায় দুজনই ভাড়া থাকতেন। বেশ কিছুদিন পূর্বে মঞ্জুরুলের পকেট থেকে ১৫০০ টাকা পাওয়া যাচ্ছিল না। তাই মঞ্জুরুল সরাসরি নাহিদকে চোর দাবি করে। এবং সে স্থানীয়দের কাছে এ ঘটনা বলে। নাহিদের বাবা-মাকেও কল দিয়ে জানায়। এতে নাহিদ মঞ্জুরুলের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে যায়। 

গত শুক্রবার রাতে মঞ্জুরুলকে ঘুমন্ত অবস্থায় নাহিদ মাথায় দা দিয়ে ছয়টি কোপ দিয়ে হত্যা করে। পরে তার লাশ কাবিলা এলাকার একটা কবরস্থানের পাশে পুঁতে ফেলে মাটি চাপা দেয়। ঘটনার তিনদিন পর সোমবার (১৬ জানুয়ারি) ঘটনায় জড়িত একজনকে আটকের পর সে দোষ শিকার করে পুলিশকে লাশের সন্ধান দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। 

নিহত যুবক রংপুরের বদরগঞ্জ থানার আলা মিয়ার ছেলে মঞ্জুরুল ইসলাম (২৬)। আটক যুবক রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার মো. নাহিদ (১৮)। 


বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মারুফ রহমান বলেন, ঘটনার শুরু কয়েকদিন আগে। গতকাল বিকেলে আমাদের কাছে জিডি নিয়ে আসে নিহত মঞ্জুরুলের ভাই। পরে আমরা তার রুমমেটকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনি। তার কথায় সন্দেহ হলে আমরা তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে আমাদের বিস্তারিত বলে। সে জানায় চোর বলাতেও তাকে হত্যা করেছে। পরে লাশ মাটি চাপা দিয়েছে। তার তথ্যের ভিত্তিতে আমরা মঞ্জুরুলের লাশ উদ্ধার করি। 

তিনি জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আর এ ঘটনায় একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। নাহিদ পুলিশ হেফাজতে আছে।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন