শিরোনাম

প্রকাশঃ ২০২৩-০৭-০১ ১৫:২৫:৪০,   আপডেটঃ ২০২৪-০৫-২০ ১০:২১:০৭


যত চাপই আসুক নির্বাচন হবে দেশের সংবিধান অনুযায়ী - লাকসামে এলজিআরডি মন্ত্রী

যত চাপই আসুক নির্বাচন হবে দেশের সংবিধান অনুযায়ী - লাকসামে এলজিআরডি মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক 

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কোনো বিদেশি প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী নির্বাচন হবে না। কারণ এই দেশ আমাদের দেশ। বিদেশিরা আমাদের ভিক্ষুকের জাতি খেতাব ছাড়া আর কিছুই দেয়নি। আমরা ভিক্ষুকের জাতি হতে চাই না। বাংলাদেশ আজকে উন্নয়নের রোল মডেল। যত চাপই আসুক আমাদের নির্বাচন দেশের সংবিধান অনুযায়ী এবং সঠিক সময়ে অনুষ্ঠিত হবে। 


শনিবার (১ জুন) সকালে কুমিল্লার লাকসামে নিহত পৌর ছাত্রলীগের সহসভাপতি ইফতেখার আহমেদ অনিকের কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।


মন্ত্রী বলেন, লাকসামে ছাত্রলীগ নেতা অনিককে কুপিয়ে হত্যা করেছে যুবদল ও ছাত্রদলের সন্ত্রাসীরা। আর এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে নিতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম মিথ্যাচারে নেমেছেন। তিনি হত্যাে ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ না করে উল্টো বিএনপি নেতার বাড়ি ভাঙচুর করার মিথ্যা ও বানোয়াট বিবৃতি দিয়েছেন, যা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা এ ঘটনার নিন্দা জানাচ্ছি।


মো.তাজুল ইসলাম আরো বলেন, বিএনপি চায় জনগণের ভোটের অধিকার যেন প্রতিষ্ঠিত না হয়। এজন্য তারা ভোট চায় না; তারা সন্ত্রাস করে ক্ষমতায় আসতে চায়। তাই নির্বাচন বানচাল করতে বিএনপি ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ না নিয়ে তারাই মানুষের ভোটের অধিকার নষ্ট করেছে। অথচ এখন তারা বলে জণগণকে ভোট দিতে দেওয়া হয়নি। যত ষড়যন্ত্রই আর বাধাই অসুক সংবিধান অনুযায়ী পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় আগামীতে বাংলাদেশেও সেভাবেই নির্বাচন হবে। 


বাংলাদেশ কোন বিদেশি শক্তির কাছে মাথা নোয়াবে না উল্লেখ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ও সপ্তম নৌবহর আর অস্ত্র পাঠিয়ে আমাদের বিজয়কে ছিনিয়ে নেওয়ার ষড়যন্ত্র হয়েছিল। কিন্তু বাঙালি সকল ষড়যন্ত্রকে মোকাবেলা করেই স্বাধীনতার লাল সবুজ পতাকা অর্জন করেছে। ৭৪ সালে জাহাজভর্তি খাদ্য সাহায্য ফিরিয়ে নিয়ে বাংলাদেশে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির অপচেষ্টা হয়েছিল। বর্তমানে তারা আমাদেরকে গণতন্ত্রের সবক শেখাতে চায়। তাদের কাছে গণতন্ত্র মানে দেশকে পেছনে ফেলা আর দেশে সন্ত্রাস কায়েম করা। দেশের মানুষ সকল ষড়যন্ত্রের উচিত জবাব দেবে। 


লাকসাম উপজেলা ও পৌরসভা ছাত্রলীগের আয়োজনে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইউনূস ভূঁইয়া, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি তাবারক উল্লাহ কায়েস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান মহব্বত আলী,  পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালাউদ্দিন সানী, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম তুষার, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফ খান স্বাধীনসহ অন্যরা।


প্রসঙ্গত, গত ২১ জুন ছাত্রদলের নেত-কর্মীদের হামলায় ইফতেখার অনিক আহত হন। উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে অনিকের শরীরের বিভিন্ন অংশ ক্ষতবিক্ষত হয়। এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন থাকার পর গত বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন