শিরোনাম

প্রকাশঃ ২০২৩-০৭-২২ ১৬:০১:৪৫,   আপডেটঃ ২০২৪-০৪-১৯ ০৬:২৩:৫৫


"জাতীয় জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই একাত্তরের চেতনা বাস্তবায়ন করতে হবে"

"জাতীয় জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই একাত্তরের চেতনা বাস্তবায়ন করতে হবে"

নিজস্ব প্রতিনিধি 

হত্যা ও নির্যাতন করে কোনো জাতিকে দাবিয়ে রাখা যায় না।এর জ্বলন্ত দৃষ্টান্ত বাংলাদেশ।কারণ একাত্তরের ২৫ মার্চ কালো রাত্রিতে পশ্চিম পাকিস্তানিদের নির্মম হত্যাকাণ্ডসহ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতার সূর্যকে ছিনিয়ে আনে বাঙালি জাতি। তাই জাতীয় জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই একাত্তরের চেতনা বাস্তবায়ন করতে হবে। 

শনিবার (২২ জুলাই)  কুমিল্লায় ভাষা সৈনিক অজিত গুহ মহাবিদ্যালয়ে 'গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ ১৯৭১' শীর্ষক ১১ তম পোস্ট গ্রেজুয়েট ট্রেনিং কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বক্তারা।

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের গবেষণা প্রকল্পের আওতায় মাসব্যাপী এ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেছেন  কুমিল্লার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২৫ প্রশিক্ষণার্থী। এতে গণহত্যা জাদুঘরকে সহযোগিতায় রয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, কুমিল্লা।

 বক্তারা আরও বলেন, একাত্তরে পাকিস্তানের প্রেতাত্মারাই বর্তমানে দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।তাদের সব অপচেষ্টা রুখে দিতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে। 

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. জামাল নাছেরের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি র বক্তব্য রাখেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ। ভাষা সৈনিক অজিত গুহ মহাবিদ্যালয়ের উপাধ্যক্ষ মোস্তাক আহমদের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন  অধ্যক্ষ মো. শরিফুল ইসলাম। 

আরও বক্তব্য রাখেন ১১তম কোর্স পরিচালক ও ভাষা সৈনিক অজিত গুহ মহাবিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যক্ষ হাসান ইমাম মজুমদার।

 শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন কোর্স সমন্বয়ক অধ্যাপক ড. মো. মনিরুজ্জামান শাহীন। উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও  বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষকবৃন্দ।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন