শিরোনাম

প্রকাশঃ ২০২১-০৯-১১ ২৩:৫৩:৪১,   আপডেটঃ ২০২১-০৯-২৪ ১১:৫৩:৫০


নাঙ্গলকোটে গৃহবধূ সাথী হত্যার বিচারের দাবিতে গ্রামবাসীর মানববন্ধন

নাঙ্গলকোটে গৃহবধূ সাথী হত্যার বিচারের দাবিতে গ্রামবাসীর মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট পুজকরায় গৃহবধূ সাথীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায় বিচার নিশ্চিতের দাবিতে মানববন্ধন করেছে গ্রামবাসী। শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের নাঙ্গলকোট আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নের পুজকরা গ্রামের জ্যাঠার দোকানের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় ইউপি সদস্য দেলোয়ার, ইউপি সদস্য শাহজান ও প্রকৌশলী শাহজাহান চৌধুরীসহ গ্রামের প্রায় সহস্রাধিক নারী, পুরুষ ও বয়স্করা। 

উপস্থিত গ্রামবাসীদের একটাই দাবি গৃহবধূ সাথীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন। সাথীকে আত্মহত্যা করেনি। হত্যার পর তাকে হত্যা ঝুঁলিয়ে রাখা হয়েছে। এই হত্যাকাÐের সঙ্গে শ্বশুরবাড়ির লোকজন জড়িত বলে সাথীর মা-বাবা দাবি করছেন। 

পরিবার সূত্রে জানা যায়, নাঙ্গলকোট থানার আদ্রা দক্ষিন ইউনিয়নের একই গ্রামেরই  আবদুল গফুরের ছেলে প্রবাসী হারুনুর রশিদের সঙ্গে বিয়ে হয় সাথীর। তাদের দুইটি সন্তান রয়েছে। গত ৭ সেপ্টেম্বর শ্বশুর আবদুল গফুরের বাড়ি থেকে সাথীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।  

অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার লাশ ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নিচে নামিয়ে ঘাটের উপর সুবিধামত রেখে দেয়ে পুলিশ আসার আগে। ঝুলন্ত ছিল এটা শ্বশুরবাড়ির লোকজনের ভাষ্য কিন্তুু পুলিশেএসে ঝুলন্ত পায় নি।   মৃত্যর পর  সাথীর শরীরে ব্যবহৃত কোন অলংকার  ছিলো না।  পুলিশ সাথীর ভাসুরের ঘর থেকে সাথীর  লাশ উদ্ধার করে। তারা আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিতে চেষ্টা করে। অথচ দুদিন আগেও সাথী তার ভাইকে বলেছিলো ভাইয়া আপনি আমার জন্য দু'আ কইরেন। আমার উপর তাো প্রতিশোধ নিতে চাইছে । এতেই প্রমাণিত হয় হত্যার মধ্যদিয়ে পরিশোধ নেওয়া হচ্ছে  ।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন